মেঘ প্রতিশ্রুতি

শিকাগোতে আজ টুপ টুপ টুপ বৃষ্টি সকাল থেকে। তাই এই কবিতাটা আমার প্রিয় পাঠকদের জন্য। যারা তেমন পড়ার সময় পান না, তাদের কথা ভেবে কবিতাটা আবৃত্তিও করে দিলাম। সোজা নিচে গেলে লিঙ্কটা পাবেন। যারা পড়তে ভালবাসেন, তারাও আবৃত্তিটা শুনতে পারেন। আশা করি ভালোই লাগবে।

সন্ধে নামার প্রাক্কালে

বৈশাখী বিশীর্ণ বিকেলে মেঘেদের মাধুকরী শেষ হলে পরে বায়বীয় বিষণ্ণতা আকাশের চোখে লেগে থাকে   সন্ধে নামার প্রাক্কালে মনে হয় পৃথিবীটা ভারি কাব্যময় অন্তরালে ডালে ডালে শুকসারি চুপ বসে থাকে দোয়েল চন্দনারা কোন এক বেদনসুরে গায় পৃথিবীতে স্বপ্ন নামে, কবিতা নামে ধীর ভঙ্গিমায় শিশির পেলব কথা জমে থাকে পথেদের বাঁকে   অবসান যত অঙ্ক, যত... Continue Reading →

কলকাতায় ভেনিস

ঘুমের মধ্যে বললেন এসে হরি
"এবার তোমায় যেতে হবে। চলো হে তাড়াতাড়ি"
আমি বললাম "হে প্রভু আপনার পায়ে পড়ি
আমায় কেন যেতে হবে এখুনি যমের বাড়ি?
কি দোষ আমার? আমি কি চুরি করি?
নাকি আমি election লড়ি?.... Continue reading

জন্মদিনে

জন্মদিনে ঘুম থেকে উঠে নিজেকে ঈশ্বর মনে হয় বাথরুমে গিয়ে আয়নায় স্পষ্ট দেখতে পাই আমার মাথার পেছনে ঈশ্বরীয় হ্যালো দু চোখের মাঝখানটা দগদগ করতে থাকে এই বুঝি ফুটে উঠবে অনুভবী তৃতীয় চক্ষু হাতটা নিজের অজান্তেই তথাস্তু মুদ্রা নেয় বার বার ঠোঁটের কোনে লেগে থাকে ক্ষমাশীল স্মিত পরিশীলিত হাসি রাস্তায় বেরোলেই দেখি রাশি রাশি রাঙা রঙ্গন... Continue Reading →

স্বাধীনাকে

আজও তোর ছাদের বাগানে বোগেনভিলিয়া হয়ে ফুটি                তোর আঙ্গুলের ছোঁয়া পাব বলে আজও তোর ঠোঁটে সিগারেট হয়ে জুটি           তোর ফুসফুসে কার্বন হয়ে জমবো বলে আজও হাতে গেলাস হয়ে তোর স্নায়ুতে, মস্তিস্কে মাদক হয়ে ছুটি,          নেশাতুর ঘুমের রেশ আজও সদ্য-গোঁফ-ওঠা... Continue Reading →

যেতে হবে

তবু চলে যেতে হবে ছেড়ে অঘ্রাণের কোনো এক বিষণ্ণ দ্বিপ্রহরে ছেড়ে যেতে হবে এই ঘাস-জমি, ধান-গোলা, খেত, ঘাট, খামার দু ফোঁটা চোখের জল বরাদ্দ থাকবে শুধু আমার। ঝরে যাব ঘাসের আঁধারে এক ফোঁটা শিশিরের মতো আমার শরীর কুড়ে কুড়ে খাবে অগণিত বলিভুক্‌ যতো এক প্রাচিন অশ্বত্থের ছায়াতে শুয়ে আমি একা - নির্বেদ হেমন্তের মলয় সমীর... Continue Reading →

বেয়াদব আওয়াজ

পাথর দিয়ে যত্ন করে বাঁধিয়েছি মনের ঘাট রূপকথারা আসে না আর আজ কান্না? সে তো মেয়েদের শোভা পায় - এমনই শিখিয়েছে আমায় এই বেশ্যা সমাজ। সামনে দিয়ে সোজা হেঁটে চলে গেলাম যেন আমি “চির উন্নত শির”, যেন আমি মিলিটারি “বুটের পরে বুট” আমার উগ্র সুগন্ধে স্টেশানের বাতাস মদির। "ক্যান ইউ প্লীজ হেল্প মী? আই নীড... Continue Reading →

মেখলা তুমি

মেখলা, তুমি একলা বিকেলে আমার সাথে বৃষ্টিতে ভিজেছিলে মনে পড়ে? মেখলা, তোমার হাতের নরমে আমার হাতকে আশ্রয় দিয়েছিলে যত্ন করে মেখলা, তুমি অষ্টমীতে নীল শাড়িতে আকাশ হয়েছিলে মনে আছে? মেখলা, তোমার কস্তুরী মৃগী গন্ধ পেতে আসতে চেয়েছিলাম আরো কাছে মেখলা, তুমি স্নানশেষে খোলা চুলে কার অপেক্ষায় দাঁড়িয়েছিলে জানালাতে মেখলা, সেই বৃষ্টিস্নাতা মিষ্টি তোমায় লুকিয়ে দেখেছিলাম... Continue Reading →

ভুতদেখা

সন্ধ্যার অন্ধকারে বারান্দায় দাড়িয়ে সিগারেট টানছিলাম আর হিসেব করছিলাম, বোনাসের টাকা দিয়ে গাড়িটা বদলানো যায় কিনা। হঠাত ভুত দেখলাম, হ্যাঁ, ভুত, আমারি ভুত ভুত মানে তো অতীত, আমার অতীত - বিশ বছর আগের আমি, ওর হাতেও সিগারেট আমার হাতে ক্লাসিক মাইল্ড, ওর হাতে সস্তা কি একটা, নাম ভুলে গেছি ভুত দেখে ভয় পেতে হয়, তাই... Continue Reading →

Blog at WordPress.com.

Up ↑

%d bloggers like this: